সার্বজনীন সহায়ক ব্যবস্থা সমূহ

নির্দেশনাবলীটি যেন সার্বজনীন ব্যবহার উপযোগী হয়, সেই চিন্তা থেকে মূল কিছু বিষয় মাথায় রেখে নির্দেশনাগুলো লেখা হয়েছে।

 

প্রথমত, কোনও একটি নির্দেশনা যেন শুধুমাত্র শুনে বোঝা যায় সেদিকে বেশ খানিকটা জোর দেয়া হয়েছে, ‘চিত্র বা ছক অনুযায়ী’ হবে বলে ছেড়ে দেয়া হয় নি।

 

দ্বিতীয়ত, প্রতিটি নির্দেশনা যেন একক ভাবে পড়ে বা শুনে পূর্ণ অর্থ দাঁড়া করানো যায়, সেজন্য প্রতিটি নির্দেশনাতেই অন্তত একবার সেটির প্রসঙ্গটি বলে নেয়া হয়েছে। এতে আরেকটি অতিরিক্ত সুবিধা যা হয়েছে তা হল, নির্দেশনা গুলো খুঁজে বের করা অনেকটা সহজ হয়েছে।

 

তৃতীয় বিষয়টি একটু সামগ্রিক, কোনও একটি বিষয়ের নির্দেশনাগুলো পড়ার সময় খুব বেশি অন্য কোনও বিষয়ের নির্দেশনার দিকে ঠেলে দেয়া হয়নি। অন্য নির্দেশনার কথা উল্লেখ থাকলেও শুধুমাত্র নির্দেশনাটির ক্রম উল্লেখ না করে ছোট প্রাসঙ্গিক বর্ননাও দিয়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়াও কোনও শব্দের লিখিত সংক্ষিপ্ত রূপ এবং দুর্বোধ্য পরিভাষা পরিহার করা হয়েছে। সর্বোপরি বেশ কিছু নির্দেশনার পর তার কারণ বা প্রয়োগটিও ব্যাখা করা হয়েছে, যেন বিষয়টি ধারণাগত দিক থেকে আরও পরিষ্কার হয়।


সর্বোচ্চ সংখ্যক পাঠকের সুবিধার্থে এবং সমান এক্সপেরিয়েন্স এর কথা মাথায় রেখে, চিত্র গুলোতে কেবলমাত্র সাদা, কালো, নীল, ও হলুদ ছাড়া অন্য রঙের ব্যবহার করা হয়নি। নির্দেশনা ও সংশ্লিষ্ট চিত্রের মধ্যকার সংযোগ স্থাপন সহজ করার জন্য, নির্দেশনার আলোচ্য বিষয়গুলো চিত্রে হলুদ রঙ দ্বারা চিহ্নিত করে দেয়া হয়েছে, এবং চিত্রের লিখিত অংশ অন্যান্য লিখিত অংশের থেকে কিছুটা আলাদা করতে নীল রঙ ব্যবহার করা হয়েছে।

 

সেই সাথে নির্দেশনার লিখিত অংশের মত চিত্রেও একই জাতীয় শব্দ এবং একই আকারের অক্ষর ব্যবহার করা হয়েছে। চিত্র গুলো সঠিক অনুপাতে অঙ্কিত যেন সহজেই বাস্তব উদাহরণ এর সাথে মিলিয়ে দেখা সম্ভব হয়।